বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম 2022

হ্যালো প্রিয় ভিজিটর আশা করি আপনারা সকলে ভালো আছেন। আপনাদেরকে আবারো আমাদের সাইটে আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক স্বাগতম জানাই। আজকের পোস্ট এ আমি আপনাদের সাথে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম এই বিষয় টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। তো চলুন দেরি না করে পোস্ট টি শুরু করা যাক।

 

বাংলাদেশে সব থেকে বেশী ব্যবহৃত এবং জনবহুল মোবাইল ব্যংকিং হলো বিকাশ। টাকা লেন দেন করার জন্যই মূলত এই বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করা হয়। এই বিকাশ একাউন্ট এর মাধ্যমে আমরা খুবই নিরাপদে নিজেদের টাকা লেনদেন করতে পারি। বিকাশ হলো ব্রাক ব্যাংক লিমিটেড এর একটি মোবাইল ব্যাংকিং সেবা।

সহজ কথায় বলতে গেলে বিকাশ আমাদের টাকা আদান প্রদান করার উপায়কে আরো সহজ করে দিয়েছে। তাই বর্তমানে সকলের একটি করে বিকাশ একাউন্ট থাকা অনেকটাই জরুরি। আবার অনেক সময় বিকাশ অনেক ক্যাশব্যক অফার দেয় যা দিয়ে টাকা আয় করা যায় আবার রেফার করেও আয়ের ও তো সুযোগ আছেই। তাই দেরি না করে বলবো আপনি এখনি একটি বিকাশ একাউন্ট খুলে নিন।

বিকাশ একাউন্ট খুলতে কী কী লাগে?
বিকাশ একাউন্ট খুলতে কী কী লাগে?

বিকাশ একাউন্ট চালু করতে কি কি লাগে?

বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য কী কী লাগবে তা নির্ভর করবে আপনি কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খুলবেন তার উপর। আপনি যদি এজেন্ট এর কাছে গিয়ে নিজের একাউন্ট খুলেন তাহলে যা যা লাগবে তা এজেন্ট ই বলে দিবে। আর যদি নিজে ঘরে বসেই নিজের হাতে থাকা স্মার্টফোন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলতে চান তাহলে যা যা লাগবে সেটা নিচে বলে দিচ্ছিঃ

১. একটি স্মার্টফোন,
২. একটি সিম নাম্বার,
৩. এন আই ডি কার্ড,

ব্যস এই ৩ টি জিনিস থাকলেই আপনি নিজেই নিজের বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন। নিম্নে বিকাশ নিয়ে আরো তথ্য দেওয়া হলো।

 

একটা আইডি দিয়ে কয়টি বিকাশ খোলা যায়?

অনেকের মনেই প্রশ্ন আসতে পারে যে একজন ব্যক্তি কয়টি বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারে। তো এর জন্য আমি বলবো একজন ব্যক্তি চাইলে যত গুলো সম্ভব বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবে মানে আনলিমিটেড। কিন্তু এখানে একটি কথা আছে, সেটা হলো একটি নাম্বার এবং একটি এনআইডি কার্ড দিয়ে শুধু মাত্র ১ টি বিকাশ একাউন্ট ই খোলা সম্ভব।

এর অর্থ দাঁড়ায় যার কাছে যত গুলো মানুষের এন আইডি কার্ড এবং আছে ততগুলো বিকাশ একাউন্ট খোলা সম্ভব। তবে এনআইডি কার্ড থাকলেই হবে না, যার এন আইডি কার্ড তাকেও দরকার হবে।

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২
বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

এবার আসি মেইন বিষয়ে, কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়। তো বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনাদের একটি সঠিক গাইড লাইনের দরকার যা নিম্নে দেওয়া হলো। নিজে নিজেই বিকাশ একাউন্ট খুলতে আমার নিচে বলা স্টেপ গুলো ফলো করুন।

১. প্রথমেই আপনাদের দরকার পরবে বিকাশ এর অফিসিয়াল এন্ড্রয়েড এপ টি। এপ টি সংগ্রহ  করতে এই লিংক এ ক্লিক করে সরাসরি প্লে স্টোরে চলে যান। এবং এপটি ইন্সটল করে নিন।

২. বিকাশ এপ ইন্সটল করা হয়ে গেলে এপটি ওপেন করুন। তবে ওপেন করার আগে নিজের ফোনের নেট কানেকশন অন করে রাখবেন। এবং যে সিমে বিকাশ একাউন্ট খুলবেন সেই সিম টি আপনি যে ফোনে এই কাজটি করছেন সেই ফোনে থাকতে হবে। এর পর এপটি ওপেন করুন।

৩. এবার বিকাশে ঢুকলে কিছু পার্মিশন চাইবে সেগুলো Allow করে দিবেন। তারপর লোকেশন পার্মিশন চাইলে ok করে দিবেন। এর পর বিকাশের এপের হোম পেজে নিয়ে যাবে। সেখানে গিয়ে আপনারা নিচের দিকে লাল বাটন পাবেন যেখানে Log in/ Registration লেখা থাকবে সেই বাটনে ক্লিক করে দিবেন।

৪. এবার আপনাকে আপনার ফোন নাম্বার দিতে বলবে সেটা দিয়ে দিবেন। তারপর নেক্সট এ ক্লিক করবেন।

৫. তো আপনার নাম্বার এ যদি বিকাশ আগে থেকে খোলা না থাকে তাহলে বলবে রেজিষ্ট্রেশন করতে। তো সেখানে উপরে আগে থেকেই আপনার আগে দেওয়া নাম্বার টি শো করবে আর নিচে বলবে আপনার সিমের অপারেটর সিলেক্ট করতে। মানে আপনি যে কোম্পানী এর সিম এ বিকাশ খুলছেন বা উপরে যে নাম্বার দিছেন সেই নাম্বার কোন কোম্পানী এর সেটা সিলেক্ট করে দিবেন। তারপর নেক্সট এ ক্লিক করবেন।

৬. এবার আপনাকে বলবে একটি কোড দিতে। তো কোড কোথায় পাবেন তাই না? চিন্তার কারণ নেই আপনার দেওয়া নাম্বারেই তারা কোড পাঠিয়ে দিবে। কোড আসার পর বিকাশ থেকে একটি পপ আপ মেসেজ আসবে সেটায় আপনারা Allow করে দিবেন। তাহলে কোড অটোমেটিক সেখানে চলে আসবে।

[বিদ্রঃ যে সিমে একাউন্ট খুলছেন সেই সিম আপনার ফোনে না থাকলে কাজ হবে না]

৭. তো এবার আপনাকে কিছু শর্ত দিবে তারা, পারলে সেগুলো পড়ে নিবেন, না পড়লেও ক্ষতি নেই। না পড়লে নিচের দিকে নেক্সট বাটন পাবেন ক্লিক করে দিবেন।

৮. এবার আপনাকে একাউন্ট খোলার জন্য কী করতে হবে তা বলে দিবে। চাইলে সেগুলো নাও পড়তে পারেন। শুধু নেক্সট বাটনে ক্লিক করে দিবেন।

আরো পড়ুনঃ জিমেইল আইডি খোলার নিয়ম 2022

৯. এবার আপনাকে বলবে যে, NID কার্ড এর সামনের অংশের ছবি তুলতে। সেটা সুন্দর করে তুলে দিবেন। ছবিটি এমন ভাবে তুলবেন যাতে খুব ভালো ভাবে সেটা বোঝা যায়।

১০. এবার আপনাকে NID কার্ড এর পেছনের অংশের ছবি তুলতে বলবে সেটা তুলে দিবেন। তারপর সেটা সাবমিট করে দিবেন।

১১. এরপর আপনার ফোনের স্ক্রীনে আপনার এন আই ডি কার্ড এর সব তথ্য শো করবে। কোনো টি যদি ভূল হয় (ছবি ঘোলা হওয়ার জন্য এমন হয়) তাহলে সেটা ঠিক করে নিবেন। তারপর নেক্সট এ ক্লিক করে দিবেন।

১২. এবার আপনার কাছে আপনার কিছু তথ্য চাইবে যেমনঃ আপনার লিঙ্গ, কী কাজ করেন, বার্ষিক আয় ইত্যাদি সেগুলো দিয়ে নেক্সট বাটবে ক্লিক করে দিবেন।

১৩. এরপর আপনাকে ভেরিফাই করতে বলবে। এর জন্য যার এন আই ডি কার্ড দিয়ে একাউন্ট খুলছেন তার সামনে আপনার ফোনের সেল্ফি ক্যামেরা ধরুন এবং খুব ভালো ভাবে যাতে ছবি আসে সেভাবে ক্যামেরা ধরুন। তারপর কি আপনাকে বলবে চোখের পলক ফেলতে সেটা করবেন। ব্যস ভেরিফাই হয়ে যাবে।

১৪. এবার আপনার সব কাজ সঠিকভাবে করা হলো প্রদত্ত সিম নাম্বারে একটি বিকাশ থেকে মেসেজ যাবে যে একাউন্ট খোলা হয়ে গেছে। এবার কাজ হলো পিন সেট করা।

১৫. বিকাশ এপ থেকে এবার বলবে ৫ অংকের একটি পিন দিতে। ২ টা বক্স থাকবে ২ টা বক্সে একই পিন দিয়ে ওকে করে দিলেই হয়ে যাবে আপনার একাউন্ট খোলা। পরে হয়তো বলবে আপনার নাম এবং ছবি দিতে চাইলে দিয়ে দিবেন।

 

তো উপরের উপায় গুলো ফলো করে যদি নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারেন তাহলে কিন্তু কমেন্ট করে জানাবেন।

 

তো প্রিয় ভিজিটর আশা করছি আপনাদের কাছে আজকের এই পোস্ট টি ভালো লেগেছে। যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই কিন্তু কমেন্ট করে জানাবেন। এবং আমাদের সাইটে এরকম আরো অনেক হেল্পফুল পোস্ট রয়েছে সেগুলো পড়তে চাইলে আমাদের সাইট টি একবার ভিজিট করুন। আর আজকের মতো এখানেই বিদায়, ভালো থাকবেন সুস্থ্য থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.